ডিসি সম্মেলন শুরু হচ্ছে আজ

মঙ্গলবার (১৮ জানুয়ারি) সকাল ১০টা থেকে ডিসি সম্মেলন শুরু হচ্ছে
ফাইল ছবি

তিন দিনব্যাপী ডিসি সম্মেলন শুরু হচ্ছে আজ (মঙ্গলবার, ১৮ জানুয়ারি)। সকাল ১০টায় রাজধানীর ওসমানী স্মৃতি মিলনায়তনে অনুষ্ঠিত সম্মেলন গণভবন থেকে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ভার্চুয়ালি উদ্বোধন করবেন। এতে প্রধানমন্ত্রীর উপস্থিতিতে মাত্র ২ জন ডিসি বক্তব্য রাখবেন।

দুই বছরেরও অধিক সময় পর সরকারের সঙ্গে সরাসরি যোগাযোগের উদ্দেশে ডিসি সম্মেলন শুরু হচ্ছে।

মন্ত্রিপরিষদ বিভাগ জানিয়েছে, করোনা মহামারির কারণে দীর্ঘ আড়াই বছর পর ১১, ১২ ও ১৩ জানুয়ারি ডিসি সম্মেলনের তারিখ নির্ধারিত হলেও তা পিছিয়ে  নির্দিষ্ট করা হয়েছে ১৮, ১৯ ও ২০ জানুয়ারি (মঙ্গল, বুধ ও বৃহস্পতিবার)।

এবারের ডিসি সম্মেলনে জেলা প্রশাসকদের প্রতি সর্বত্র সুশাসন প্রতিষ্ঠায় কঠোর মনোভাব প্রদর্শনের নির্দেশনা ছাড়াও চলমান চতুর্থ শিল্প বিপ্লব মোকাবিলায় সক্ষমতা অর্জনের বিষয়টিও থাকবে।

মন্ত্রিপরিষদ বিভাগ আরও জানায়, এবারের সম্মেলনে দেশের ৬৪ জেলার ডিসি ও ৮ বিভাগের বিভাগীয় কমিশনার অংশ নেওয়ার প্রস্তুতি নিলেও কোভিড আক্রান্ত হওয়ায় ৫ জেলার ডিসি ও ২ বিভাগের বিভাগীয় বিভাগীয় কমিশনার সম্মেলনে অংশ নিতে পারছেন না।

সোমবার (১৭ জানুয়ারি) অনুষ্ঠিত সংবাদ সম্মেলনে মন্ত্রিপরিষদ সচিব খন্দকার আনোয়ারুল ইসলাম জানান, ডিসি সম্মেলন শুরু হচ্ছে মঙ্গলবার (১৮ জানুয়ারি) এবং শেষ হবে বৃহস্পতিবার (২০ জানুয়ারি)। সম্মেলনের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে ১৫ জন মন্ত্রী ও ১৫ জন সচিবকে আমন্ত্রণ জানানো হয়েছে।

জাতায়ী স্বার্থ সুরক্ষায় নীতি নির্ধারণের নিমিত্তে সরকারের উচ্চ পর্যায়ের নীতিনির্ধারক ও জেলা প্রশাসকদের মধ্যে সামনা-সামনি মতবিনিময় এবং দিকনির্দেশনা দেওয়া ও প্রস্তবনা পাওয়ার জন্য সাধারণত প্রতিবছরের জুলাই মাসে ডিসি সম্মেলনের আয়োজন করা হয়ে থাকে।

মন্ত্রিপরিষদ সচিব আরও জানান, ‘স্পিকারের শুভেচ্ছা বক্তব্য নিয়ে একটি ও প্রধান বিচারপতির শুভেচ্ছা বক্তব্য নিয়ে একটি সহ মোট ২৫টি অধিবেশন হবে এবারের সম্মেলনে। এর মধ্যে বিভিন্ন মন্ত্রণালয় ও বিভাগের সঙ্গে কার্য অধিবেশন ২১টি, একটি উদ্বোধন অনুষ্ঠান এবং মহামান্য রাষ্ট্রপতির দিকনির্দেশনা গ্রহণ নিয়ে একটি। এতে মোট ৫৫টি মন্ত্রণালয় ও বিভাগ অংশগ্রহণ করবে। অধিবেশনগুলোতে মন্ত্রণালয় ও বিভাগের প্রতিনিধি হিসেবে মন্ত্রী, উপদেষ্টা, প্রতিমন্ত্রী, উপমন্ত্রী, সিনিয়র সচিব ও সচিবরা উপস্থিত থাকবেন। ডিসি সম্মেলন উপলক্ষে জেলা প্রশাসক ও বিভাগীয় কমিশনারদের কাছ থেকে মোট ২৬৩টি প্রস্তাব পাওয়া গেছে। এর মধ্যে ভূমি মন্ত্রণালয় সংক্রান্তই সর্বাধিক। এ মন্ত্রণালয় থেকে রয়েছে মোট ১৮টি প্রস্তাব। এছাড়া সমাজকল্যাণ মন্ত্রণালয় থেকে ১৬টি ও জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয় থেকে ১৫টি প্রস্তাব পাওয়া গেছে।’

এর আগে সর্বশেষ ২০১৯ সালের ১৪ থেকে ১৮ জুলাই পর্যন্ত জেলা প্রশাসক সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়েছে। মোট ৫দিনব্যাপী ওই সম্মেলন শেষে করোনা মহামারীর কারণে পরবর্তী দুই বছর আর জেলা প্রশাসক সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়নি।

আরও পড়ুন : সোনার বাংলা গড়তে ঐক্যবদ্ধ হয়ে কাজ করার আহ্বান: রাষ্ট্রপতি